পানির জন্য ছিল হাহাকার : হঠাৎ বৃষ্টিতে কৃষকের মুখে হাসি

প্রকাশিত: 8:29 PM, February 17, 2019

পানির জন্য ছিল হাহাকার : হঠাৎ বৃষ্টিতে কৃষকের মুখে হাসি

Sharing is caring!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের হাওরগুলোতে পুরোদমে চলছে বোরো ফসল আবাদ। আর এজন্য কৃষককে তৈরি করতে হচ্ছে জমি। শুকনো জমিতে ফসল রোপন করার আগে জমি প্রস্তুত করতে হয়। জমি প্রস্তুত করতে হলে প্রয়োজন হয় প্রচুর পানি। কিন্তু শুকনো মৌসুম হওয়ার কারণে পানি পাওয়া যাচ্ছিল না। এ কারণে অনেক দূর থেকে মেশিনের মাধ্যমে পানি নিয়ে আসতে হতো কৃষককে। এসব কারণে ধান উৎপাদনে কৃষকের ব্যয় বাড়তে থাকে।

তাই এতোদিন পানির জন্য ছিল হাহাকার। বৃষ্টির খুব প্রয়োজন ছিল। সুনামগঞ্জের কৃষক পরিবারগুলোর আকুতি ছিল যেন দ্রুত বৃষ্টি হয়। বৃষ্টি হলে শ্যালো মেশিন বা বৈদ্যুতিক পানির পাম্প দিয়ে আর পানি দিতে হয় না। এতে করে কৃষকের বেঁচে যাবে তেল ও বিদ্যুৎ খরচ। ব্যয় কমবে কাজের।

অবশেষে দেখা মিলেছে বৃষ্টির। আর এই বৃষ্টিতে স্বস্তি ফিরেছে কৃষক পরিবারগুলোতে। গতকাল শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত থেকে আজ রোববার প্রায় সারাদিন থেমে থেমে কয়েক দফায় বৃষ্টি হওয়ার মেশিন দিয়ে জমিতে পানি দিতে হয়নি কৃষকদের। এ জন্য শ্রম ও টাকা সাশ্রয় হচ্ছে তাদের।

বোরো ফসল ছাড়াও জেলায় এবার আউশ ধানের আবাদের প্রস্তুতি চলছে। তাই বৃষ্টি হওয়ায় কৃষকের অনেক উপকার হবে। জমির মাটি নরম হবে। ধানের চারা লাগানোর জন্য দ্রুত জমি প্রস্তুত করা যাবে। কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, জেলায় এ বছর ২ লক্ষ ১৯ হাজার হেক্টর বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।

সদর উপজেলার কৃষক মনফর আলী বলেন, ‘বৃষ্টি হওয়াতে আমাদের অনেক উপকার হয়েছে। জমি সহজে প্রস্তুত করতে পারব। কিছু জমিতে মেশিন দিয়ে পানি এনে যে ধান লাগিয়েছিলাম, সেগুলোও দ্রুত বাড়বে। সেচ দিতে হবে না।’

বিশ্বম্ভপুর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের কৃষাণী রমিজা বেগম বলেন, ‘আগাম কিছু বর্ষাকালীন সবজি চাষ করেছিলাম আমি। বৃষ্টি হওয়াতে সবজি গাছগুলো দ্রুত বাড়বে। আগাম ফলও হবে ভাল। কৃষির জন্য বৃষ্টি খুবই উপকারী। বৃষ্টি হলে সেচ দিতে হয় না। খরচ কম হয়। ভাল দামও পাওয়া যায়।’

সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সালাহউদ্দিন টিপু বলেন, ‘বৃষ্টিতে কৃষির কোনো প্রকার ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। আমরা বিভিন্ন এলাকায় খোঁজখবর নিয়েছি। বরং অনেকদিন বৃষ্টি না হওয়া কৃষকরা অপেক্ষায় ছিল কখন বৃষ্টি হবে। এই সময়ে বৃষ্টি কৃষির জন্য উপকারী।’

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

February 2019
S S M T W T F
« Jan   Mar »
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
232425262728  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares