ডাকাত রোকনের সহযোগিতায় থানার এস আই হাফিজ আতংকে শ্রীমঙ্গলবাসী

প্রকাশিত: ৪:৩৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ৫, ২০১৮

ডাকাত রোকনের সহযোগিতায় থানার এস আই হাফিজ আতংকে শ্রীমঙ্গলবাসী

ডেস্ক রিপোর্ট :: ডাকাতি,একাধিক মামলার আসামী গাজাঁ, ইয়াবা পেন্সিডিল ব্যবসায়ী ডাকাত সর্দার রোকনের আতংকে এলাকার মানুষ দিশাহারা।

মৌলভীবাজার জেলার পূর্ব শ্রীমঙ্গল লালভাগ, এলাকার মানুষের চোখে রাতে ঘুম হারম ডাকাত রোকন বাহীনির আতংকে।

একাধিক মামলার তথ্যসুত্রে থেকে জানা যায়, পূর্ব শ্রীমঙ্গল লালভাগ,গ্রামের মৃত লেবু মিয়ার ছেলে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলার আসামী থাকার পরও এলাকায় একের পর এক আতংক,চড়িয়ে বেড়াছে।তার ডাকাতি বাহিনী নিয়ে ডাকাতিসহ মাদক দ্রব্য ব্যবসা,চরি চালিয়ে যাচ্ছে।তার অপতৎপরতায় এলাকার মানুষের রাতের ঘুম হারাম।
তার বিরুদ্ধে বেশ কটি ডাকাতিসহ মামলার অভিযোগ থানায় ও কোর্টে রয়েছে। এসব মামলায় সে ৫০ বারের ওবেশী জেল কেটেছে বলে জানা যায়। তার একটি নিজস্ব বাহিনী রয়েছে তার শালা সমন্দিকরা এর সাথে জড়ীত রয়েছেন। এলাকার একাধিক লোকজন জানান, শ্রীমঙ্গল থানার এস আই হাফিজ তার কাছ থেকে মাসোয়ারা পেয়ে থাকেন। এবং অপরাধ কর্ম কান্ডে সহায়তা করেন। এর জন্য সে এলাকায় প্রকাশ্যে অপরাধ কর্ম কান্ডে চালিয়ে যাচ্ছে।
সে এলাকায় বলে বেড়ায় প্রশাশন তার পকেটে।তার বিরোদ্ধে শ্রীমঙ্গল থানায় গত ১ জুলাই রাতে তার হত ভাগা মা ছেলের অত্যাচার ও নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে থানা একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ তদন্তের জন্য শ্রীমঙ্গল থানার ও সি, এস আই হাফিজ কে দায়িত্ব দেন। এস,আই হাফিজ থানায় বসে রোকনের মায়ের সাক্ষীকে ডেকে এনে স্হানীয় ভাবে শেষ করার পরামর্শ দিচ্ছেন। এবং রোকন কে বাঁচাতে আইনী কাজ না করে বিভিন্ন কৌশল অবলম্ব করছে।এস,আই হাফিজ রোকনের অপকর্ম গুলো আপোস মিমাংশার জন্য বাদীপক্ষে চাপ প্রয়োগ করছেন।

ডাকাত রোকন যখন তার মাকে মারধর করে আহত করছে, মা সহয্য করতে না পেরে ছেলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। এই মামলার তদন্ত অফিসার এস,আই হাফিজ মামলাটি আইনগত ভাবে আমলে না নিয়ে আপোষ মিমাংশার জন্য বাদী পক্ষকে চাপদিচ্ছেন।

শ্রীমঙ্গল থানার একাধিক মামলা আসামী রোকনকে বাচাতে এস,আই হাফিজ উঠে পড়ে লাগছেন। সন্ত্রাস রোকনের উপর শ্রীমঙ্গল থানায় বেশ কিছু মামলা রয়েছে আংশিক কিছু মামলা নং ও তারিখ তুলে ধরা হলো।

শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা: মাদক দ্রব্য আইনে মামলা নং ২৭( ২)১২তারিখ ২৭/২/০১২ ইং ‘ধারায়- ৩৯৫-৩৯৭, মামলা নং০৯ তাং ১১/৭/০৮ইং,শ্রীমঙ্গল থানার জিডিনং১১৮৯তাং৩১/৮/০৪ইং’ধারা-৫৪ চুরির মামলা,
ডাকাতি মামলা নং২৩- তারিখ -২৮/১১/০৫ ধারা- ৩৯৫/৩৯৭ দঃবিঃ , মামলা নং ০৮- ৯ /৭/০৮ইং ধারা-৩৯৫/৩৯৭ দঃবিঃ, মামলা নং২৩-২৮/১১/০৬ইং ধারা- ৯৫/৯৮ দঃবিঃ, মামলা নং২৮৯/২১ধারা-৪৫৭/৩৮৯ চুরির মামলা মামলা নং০৯ -৮/১/০১১ইং ধারা-৪৬১/৩৮০ শ্রীমঙ্গল বাজারে জুয়েলারি দোকান চুরি,মামলা নং ১১২/০৮ তাং ৯/৭/০৮ইং, জি আর মামলা নং ১১৩( ০৮)১১/৭/০৮ ইং, ডাকাতি মামলা,জি আর মামলা নং ১১২(০৮)৯/৭/০১২ ইং ধারা- ৩৯৫/৩৯৭ দঃবিঃ। আর অনেক মামলা রয়েছে রোকনের বিরুদ্ধে।এলাকার একাধিক লোকের সাথে এ বিষয়ে আলাপ করলে তারা জানান একজন আইনের রক্ষক হয়ে,এস,আই হাফিজ সন্ত্রাসী রোকনের সাথে আতাতকরে তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা না নিয়ে,তাহাকে আইনের হাত থেকে বাচানোর চেষ্টা করছেন।

এ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল থানার সার্কেল আশরাফুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদক কে জানান, মায়ের সাথে কোন কিছুর তুলনা হয় না আর আপোষের প্রশ্ননই আসেনা, রুকনের বিরোদ্ধে তার মায়ের অভিযোগ রয়েছে নির্যাতনের, বিষয়টি তিনি দেখবেন বলে জানান।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..