বিউটি হত্যাকান্ড : ময়নার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাইলেন এলাকাবাসী

প্রকাশিত: ৬:১৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৯, ২০১৮

বিউটি হত্যাকান্ড : ময়নার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাইলেন এলাকাবাসী

Sharing is caring!

ক্রাইম ডেস্ক :: উন্নত প্রযুক্তির গোয়েন্দা জালেই রয়েছে বিউটি’র কিলিং মিশনে অংশ নেয়া ভাড়াটে খুনি। তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশ, ডিবি, সিআইডি ও পি.বি.আইসহ একাধিক টিম চষে বেড়াচ্ছে মাঠ। গনমাধ্যম কর্মীদের এমন তথ্যই দিয়েছেন হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা। তবে তিনি তদন্তের স্বার্থে ভাড়াটে খুনির নাম প্রকাশ করেননি। যদিও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশ্বস্থ সূত্র নিশ্চিত করেছে ভাড়াটে ওই খুনির নাম। এদিকে, পুত্রের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবী করেছেন অভিযুক্ত সায়েদ আলীর (নিহত বিউটির পিতা) বয়োবৃদ্ধ পিতা সঞ্জব আলীসহ স্বজনরা। এলাকাবাসীও চাচ্ছেন সকল খুনিদের ফাঁসি। এ বিষয়ে পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা জানান, ভাড়াটে খুনি নিহত বিউটি আক্তারের গ্রামেরই বাসিন্দা। সে এলাকায় চুরি, ডাকাতি ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। বিউটিকে হত্যার জন্য মাত্র ১০ হাজার টাকা দিয়ে ওই খুনিকে ভাড়া করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী হত্যার দিন মাত্র আড়াই হাজার টাকা দেয়া হয় তাকে। হত্যার পর পরিশোধ করা হয় অবশিষ্ট টাকা।

গণমাধ্যম কর্মীদের পুলিশ সুপার বলেন, ‘ওই দিন লাখাইয়ের গুনিপুরস্থ নানী বাড়ি থেকে বিউটিকে নিয়ে আসে বাবা সায়েদ আলী, প্রতিবেশী চাচা ময়না মিয়া ও ভাড়াটে ওই খুনি। পরে লাখাই উপজেলার হরিণাকোন গ্রামের হাওরে রাত ২টার দিকে বিউটিকে হত্যা করা হয়। ভাড়াটে খুনি বিউটির হাত পা-বেধে রাখে এবং ময়না মিয়া ছুরি দিয়ে ৫টি আঘাত করে হত্যা করে। এক পর্যায়ে রক্ত ধুয়ে লাশটি কাদে করে পার্শ্ববর্তী শায়েস্তাগঞ্জের হাওরে ফেলে রাখা হয়’। ভাড়াটে খুনিকে গ্রেফতারের বিষয়ে পুলিশ সুপার বলেন, ‘পুলিশ খুনিকে গ্রেফতার করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আশা করি দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেফতার করা হবে’।

এদিকে, শায়েস্তাগঞ্জে আলোচিত বিউটি হত্যাকান্ডের ঘটনার সাথে বাবা সায়েদ আলী জড়িত থাকার কারনে এলাকায় লোকজন বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। অনেকেই বিষয়টিকে সহজে মেনে নিতে পারছে না। খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন এলাকার আবাল, বৃদ্ধা, বনিতা। খোদ সায়েদ আলীর বৃদ্ধ বাবাও দাবী করেছেন পুত্রের ফাঁসি। গতকাল রবিবার সরেজমিনে এলাকাবাসি ও তাদের আত্মীয়-স্বজনদের সাথে আলাপকালে তারা এ বিচার দাবী করেন।

নিহত বিউটির দাদা ৭৫ বছরে বৃদ্ধ সঞ্জব আলী জানান, ঘাতক ময়নার প্ররোচনায় তার পুত্র সায়েদ আলী হত্যাকান্ডের সাথে জড়িয়ে পড়ছে। তিনি ঘাতক ময়না মিয়ার ফাঁসি দাবী করেন। পাশাপাশি তার পুত্র সায়েদ আলী অপরাধী হলে তারও ফাঁসি চান তিনি। কান্না জড়িত কন্ঠে তিনি বলেন, ‘সব নষ্টের মুল ময়না। পূর্ব বিরোধ মিঠাতে আমার পরিবার ধ্বংস’।

বিউটির বড় ভাই সাাদেক মিয়া জানান, হত্যার সাথে যারা জড়িত তাদের সকলের বিচার চাই। যদি তার বাবাও জড়িত থাকে, তাহলে তারও বিচার চান তিনি।

বিউটি হত্যাকান্ডের নাটেরগুরু বাবুল মিয়ার ছোট বোন বিউটি আক্তার প্রমি জানান, নির্বাচনে হেরে গিয়ে ময়না মিয়া প্রতিশোধ নেয়ার জন্য তাদের পরিবারকে ফাঁসানোর চেষ্টা করেছে। তিনি ঘটনার সাথে জড়িত মূলহোতা ঘাতক ময়না ও বিউটির বাবা সায়েদ আলীর দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন।

বাবুলের খালা জহুর চান বিবি জানান, ঘাতক ময়না মিয়াও বিউটির বাবা সায়েদ আলীর ফাঁসি চাই। এদের বিচার হলে এলাকায় অপরাধ প্রবনতা কমে যাবে।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares