গোয়াইনঘাটের প্রেমিক যুগল অবশেষে জেল হাজতে

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৬, ২০১৮

গোয়াইনঘাটের প্রেমিক যুগল অবশেষে জেল হাজতে

Sharing is caring!

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :: সিলেটর গোয়াইনঘাটে প্রেমের টানে ঘর ছাড়লেন স্কুল পড়ুয়া দশম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া ফাইরোজ আনিসা (১৬)।

উপজেলার ৩নং পূর্বজাফলং ইউনিয়নের ভাউরভাগ গ্রামের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলীর কন্যা সুমাইয়া ফাইরোজ আনিসা স্থানীয় জননী শিক্ষা একাডেমি থেকে প্রাথমিক শিক্ষার ইতি টেনে মাধ্যমিক শিক্ষা আহরনের উদ্দেশ্য নিয়ে ডাক্তার ইদ্রিস আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। মাধ্যমিকে শিক্ষার্জন এর সুবাদে পরিচয় হয় একই ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের জামাল উদ্দিন’র পুত্র আজহারুল ইসলাম জুবায়ের (২২)’র সাথে। প্রতিদিন স্কুলে যাওয়া-আসার সুবাদে ধীরে ধীরে আনিসা এবং জুবায়ের এর মধ্যে গড়ে উঠে প্রেমের সম্পর্ক। দীর্ঘ সাড়ে ৩ বছর থেকে তাদের এ সম্পর্কের অবসান ঘটিয়ে গত ২ মার্চ সকালে কোচিং এর নাম করে বাড়ি থেকে পালিয়ে সিলেটের জকিগঞ্জে এক আত্মিয় এর বাসায় উঠেন এই প্রেমিক যুগল। সেখানে দু’দিন অবস্থান শেষে ৩ মার্চ কুমিল্লা জর্জ কোর্টে এফিডেভিড এর মাধ্যমে বিয়ের কাজ সম্পন্ন করেন। থানা হাজতে প্রেমিক যুগল আটকের খবর পেয়ে সেখানে গেলে।

গণমাধ্যম কর্মীদের উপস্থিতে উপরোক্ত কথাগুলি বলছিলেন- ভাউরভাগ গ্রামের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলীর স্কুলপড়–য়া কন্যা সুমাইয়া ফাইরোজ আনিসা।

এদিকে, ভাউরভাগ গ্রামের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী স্কুল থেকে কন্যা সুমাইয়া ফাইরোজ আনিসা বাড়িতে ফিরে না আসায় গোয়াইনঘাট থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। নং-৩/১৮।

মামলা দায়েরের পর থানা পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকলেও। বিয়ের আনুষ্টানিকতা সম্পন্ন করে বাড়ী ফেরার পথে ৬ মার্চ ভোর রাত সাড়ে ৩টায় জাফলং বাস ষ্টেসন থেকে তাদেরকে আটক করতে সক্ষম হয়।

এবিষয়ে গোয়াইনঘাট থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায় প্রেমিক যুগল আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, স্কুল থেকে কন্যা সুমাইয়া ফাইরোজ আনিসা বাড়িতে ফিরে না আসায় তার পিতা ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী গোয়াইনঘাট থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করলে পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে আটক করেছে এবং আজ (শুক্রবার) তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares