কোম্পানীগঞ্জ ও জৈন্তাপুরে গর্ত ধ্বসে ৬ শ্রমিক নিহত

প্রকাশিত: ৯:৫৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৮

Sharing is caring!

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ ও জৈন্তাপুরে কোয়ারির গর্তধ্বসে আরো ৬ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। পৃথক এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। রোববার রাত সাড়ে ৯টায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ পাথর কেতায়ারীর হাজিরডেগনার এলাকায় গর্ত ধসে ৫ ও সোমবার দুপুরে জৈন্তাপুর উপজেলার শ্রীপুরে লিয়াকতের গর্তধ্বসে আরও একজন মারা যান। এ নিয়ে গত ১৩ মাসে পাথর কোয়ারিতে মাটি চাপায় অর্ধশতেরও বেশী শ্রেমিক নিহত হয়েছেন।
পৃথক ঘটনায় নিহতরা হলেন- সুনামগঞ্জের মুরাদপুরের আসকর আলীর ছেলে রুহুল আমিন (২২), একই এলাকার হজরত আলীর ছেলে মতিবুর (৩২), জামালগঞ্জের কলকটা গ্রামের আতাবুর রহমান (৩০) দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ছলেরবন গ্রামের আশিক আলী (৩০), সুনামগঞ্জের রইছ উদ্দিনের ছেলে মঈন উদ্দিন (৩২) ও জৈন্তাপুরের নিশ্চিন্তপুরের বাবুল মিয়ার পুত্র দেলোয়ার হোসেন (২৬)। গুরুতর অবস্থায় দেলোয়ারকে হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু ঘটে।
কোম্পানীগঞ্জের ঘটনায় গুরুতর আহতরা হলেন রুহেল (১৮), রফিকুল (১৬) ও ফিরোজ আলী (৪৫)। এদের মধ্যে ফিরোজ আলীল অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।
ভোলাগঞ্জে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে পাথর উত্তোলনে সংশ্লিষ্ট কোয়ারির শ্রমিক সর্দার আব্দুর রউফকে আটক করেছে। এ গর্তের মালিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদ এবং এর নেপথ্যে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এডিশনাল পিপি এ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমান বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। কোম্পানিগঞ্জে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে এবং গর্তে আরও মরদেহ মাটি চাপা পড়ে আছে বলে জানান তারা।
কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম খান মৃত্যুর ঘটনার নিশ্চিত করে জানান, রোববার রাতে ২ জনের, সোমবার সকাল ১১টায় ২জনের এবং বিকেল ৩টায় একই গর্ত থেকে আরো ১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গর্তে আরো লাশ আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে এবংএ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।
জৈন্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ময়নুল জাকির জানান, গর্তের উপরিভাগ থেকে মাথায় পাথর পড়ে গুরুতর আহত হন দেলোয়ার। হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু ঘটে। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

February 2018
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
2425262728  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares