প্রচ্ছদ

গোলাপগঞ্জে সংখ্যালুগুর উপর সন্ত্রাসী হামলা ২ ‘ভূমিদস্য’ জেলহাজতে

২৫ জানুয়ারি ২০১৮, ০১:৩৪

crimesylhet.com

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : সিলেটের গোলাপগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলার ২ ‘ভ’মিদস্যু’কে জেলে পাঠিয়েছেন আদালত। গত মঙ্গলবার দুপরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ১ম আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট তাদের কারাগারে প্রেরণ করেন। তারা হচ্ছেন,সিলেটের গোলাপগঞ্জের ঢাকাদক্ষিণ কানিশাইলের মৃত মইন উদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলাম ধনাই ও একই গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে জাহান আহমদ।

জানা গেছে, গোলাপগঞ্জ থানাধীন ঢাকা দক্ষিণ কানিশাইল গ্রামের মহিব উদ্দীনের ছেলে ‘ভ’মিদস্যু’ শফিক উদ্দীনের প্ররোচনায় পূর্ব হইতে উৎ পেতে থাকা উল্লেখিত আসামীগণ সহ আরোও কয়েকজন আসামী মিলে। সিলেট নগরীর খুলিয়াপাড়ার এক সংখ্যালুগুর সনৎ চক্রবর্তী উপর সন্ত্রাসী হামলা চালায় । সনৎ চক্রবর্তী হলেন গোলাপগঞ্জ উপজেলার যুক্তরাজ্য প্রবাসী জামাল উদ্দিনের মার্কেটের কেযারটেকার হন।

উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ বাজারস্থ প্রবাসী জামাল উদ্দিনের ওই মার্কেট দখলে নিতে মরিয়া ‘ভ’মিদস্যু’ শফিক উদ্দিন ও নজরুল ইসলাম ধনাই সহ কয়েকজন। কিন্তু সনৎ চক্রবর্তী ওই মার্কেটের আম-মোক্তার (কেয়ার টেকার) থাকায় তারা প্রবাসীর ওই মার্কেট দখলে নিতে পারছিলেন না। তাই ‘ভ’মিদস্যু’শফিক উদ্দিনের ভাড়াটে সন্ত্রাসী ধনাই ও তার সহযোগীরা কেয়ারটেকার সনৎ চক্রবর্তীকে খুন করার পরিকল্পনা করেন। গত বছরে ১২ ডিসেম্বর সনৎ চক্রবর্তী ঢাকাদক্ষিণ বাজারে গিয়ে মার্কেটের দোকনের ভাড়া নিয়ে সিলেট নগরীতে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে গোলাপগঞ্জ থানাধীন ঢাকাদক্ষিণ পশু হাসপাতালের সামনের রাস্তায় পৌছামাত্র ধনাই ও তার সহযোগীরা সনৎ চক্রবর্তীকে হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে কোপিয়ে গুরুতর জঘম করে এবং হাড়ভাঙ্গা জখম করে।

এসময় হামলাকারীরা সনৎ চক্রবর্তীর কাছ থেকে নগদ টাকা মোবাইল ফোন ও স্বনৃালংকার এবং মার্কেটের কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়। খবর পেয়ে সনৎ চক্রবর্তীর স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এর উন্নত চিকিৎসা নিতে তিনি নগরীর একটি বে-সরকারী হাসপাতালে ভর্তি হন। এ ঘটনায় সনৎ চক্রবর্তী বাদী হয়ে গত ২৪ ডিসেম্বর গোলাপগঞ্জ থানায় নজরুল ইসলাম ধনাই সহ ৩জনকে এজাহারভুক্ত করে কয়েকজনের বিরুদ্ধে ০৯(১২)১৭ নং মামলা করেন। মামলার পর হামলাকারী ভ’ীমদস্যুরা গ্রেফতার এড়িয়ে কেয়ারটেকার সনৎকে নানা হুমকি ধমকি দিতে থাকেন। অজ্ঞাত কারণে থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতার না করায় সনৎ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছিলেন। দীর্ঘ প্রায় ১ মাস গ্রেফতার এড়িয়ে থাকার পর ভ’মিদস্যু ধনাই ও জাহান মঙ্গরবার আদালতে হাজির হলে আদালত তাদের জেলহাজতে প্ররেণ করেন।

ভ’মিদস্যু ধনাই ও জাহান জেলে যাওয়ায় এলাকার শান্তিকামী জনগন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন। তদারা ভ’মিদস্যু ধনাই ও তার সহযোগীদের বিরুদ্দে প্রতিরোধমূলক আইনে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।
সিলেট জেলা বারের এ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী এই মামলায় ২ জন জেলে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মামলা এখনো তদন্তাধীন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোলাপগঞ্জ থানার এসআই আব্দুল বাসিত জানান, আসামীদের গ্রেফতারে তল্লাশী অভিযান অব্যাহত থাকাবস্থায় ২আসামী আদালতে হাজির হয়ে জেলবাসে চলে গেছে এবং একজন জামিনে রয়েছে। মামলা তদন্তাধীন রয়েছে এবং তাদের সহযোগী অজ্ঞাতনামা অন্য আসামীদের সনাক্ত করে গ্রেফতারে পুলিশ চেষ্টা করছে বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর

আর্কাইভ

shares