নূপুর বেতার ক্লাবের সংবর্ধনা প্রদান

প্রকাশিত: 6:49 PM, December 31, 2017

Sharing is caring!

সিলেট :: স্থানীয় সরকার সিলেট বিভাগের পরিচালক যুগ্ম সচিব মো. মতিউর রহমান বলেছেন, কাজের মূল্যায়নের মাধ্যমে গুণী শিল্পী সৃষ্টি হয়। কালের যাত্রায় এ পৃথিবীর বুকে অসংখ্য মানুষ তার পরিচয় রেখে যান কর্মের মাধ্যমে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এ ধরনের মানুষ অগণিত। তাদের কাজ যেমন বিন্দু বিন্দু করে গড়ে তুলেছে। এদেশ তেমনি সেসব মানুষকেও করেছে মহিমান্বিত। সিলেটবাসীর মধ্যে রয়েছে এ ধরনের মানুষ। সংবর্ধনা হলো কোনো কাজের মূল্যায়ন। কাজের মূল্যায়নের মাধ্যমে উৎসাহ উদ্দিপনা বাড়ে। গুণীজন সম্মাননা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকেও উৎসাহিত করবে। বেতার কেন্দ্রের অবদানের কথা তৃণমূল পর্যায়ে সর্বসাধারণের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। এজন্য বর্তমান সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছেন। পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে।
তিনি গত ৩০ ডিসেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে নূপুর বেতার শ্রোতা ক্লাব সিলেটের উদ্যোগে বিজয় দিবস উদযাপন, গুণী বেতার শিল্পীদের সংবর্ধনা প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
নূপুর বেতার শ্রোতা ক্লাবের সভাপতি কণ্ঠশিল্পী তুহিন আহমেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কণ্ঠশিল্পী শুপ্রিয়া দেব অনন্যার পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ক্লাবের উপদেষ্ঠা ইমিগ্রেশন এ্যাডভাইজার রোটা. ড. আর কে ধর, মানবাধিকার ব্যক্তিত্ব মো. দেলোয়ার হোসেন খান, ড. দিলীপ কুমার দাশ চৌধুরী, রঞ্জন সিনহা। সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন, একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ বেতার কণ্ঠশিল্পী সুষমা দাশ, ও বীর মুক্তিযোদ্ধা বেতার শিল্পী বিমলেন্দু কুমার রায়। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, স্বাধীন বাংলা বেতার শিল্পী মো. হোসেন আলী, সমাজসেবী আলাউদ্দিন আহমদ মুক্তা, গীতি কবি বাহা উদ্দিন বাহার ও ক্লাবের সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক গীতিকবি এম এ কাশেম প্রমুখ।
অনুষ্ঠান শেষে অতিথিবৃন্দ গুণী বেতার শিল্পীদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। সর্বশেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে সঙ্গীত পরিবেশন ক্লাবের শিল্পীবৃন্দ সহ স্থানীয় বেতার ও টেলিভিশন শিল্পীরা।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

December 2017
S S M T W T F
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

সর্বশেষ খবর

………………………..