নূরজাহান ক্লিনিকের বিরুদ্ধে চিকিৎসার নামে প্রতারণার

প্রকাশিত: 6:47 PM, December 19, 2017

ডেস্ক নিউজ : সিলেটে একটি ক্লিনিকের বিরুদ্ধে চিকিৎসার নামে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। আর এ অভিযোগ করেছেন বিয়ানীবাজার উপজেলার ঘুঙ্গাদিয়া গ্রামের মরহুম শিক্ষক কাজী মতিউর রহমানের পুত্র আবেদুর রহমান শিমু। মঙ্গলবার সিলেট প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার পিতাকে গত ২ ডিসেম্বর আমরা সিলেট নূরজাহান ক্লিনিকে ভর্তি করি। ভর্তির পর তারা টেস্ট করান। রিপোর্ট দেখে বলা হয় আমার বাবার কিডনী ফেল করেছে। ডায়ালাইসিস করতে হবে। হার্টে পানি আছে। তাকে আইসিইউতে নিতে হবে। একথা শুনে আমরা হতভম্ব হয়ে পড়ি। যাবার সময় আমরা রিপোর্ট নিতে চাইলে তারা কিডনীর রিপোর্ট ছাড়া সব রিপোর্ট দেন। তখন আমরা কিডনী পরীক্ষার রিপোর্ট চাই। তখন তারা তাদের প্যাডে সে রিপোর্ট না দিয়ে সাদা কাগজে প্রিন্ট করে দেন। এর চেয়ে বড় প্রতারণা আর কি হতে পারে?
পরে আমাদের পারিবারিক চিকি;সকের পরামর্শে দ্রুত তাকে ঢাকায় নিয়ে যাই। সেখানে ধানমন্ডি আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে ভর্তি করি। সেখানে উনার চিকিৎসা শুরু হয়। তারা টেস্ট করে বলেন কিডনী শতভাগ ভালো আছে। হার্টে পানিও নেই। লাঞ্চে পানি জমেছে। আমরা তখন অবাক হয়ে পড়ি। আমার পরিবারের সকল সদস্য আশায় বুক বাধি।
এই দু:খজনক ঘটনার পর আমার মনে পড়লো বিদেশে বসে প্রায়ই শুনি দেশে এরকম হয়। কিন্তু বাস্তবে যখন আমার পরিবারের বেলায় ঘটলো তখন খুব কষ্ট পেয়েছি। এভাবে একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা চলতে পারেনা। এর উন্নতি দরকার। আরো স্বচ্ছতা প্রয়োজন। চিকিৎসা ব্যবসায় একটু নৈতিকতা থাকা প্রয়োজন। রোগীদেরবে ধারাবাহিক ব্যবসার পন্য মনে করা উচিত নয়। আমাদের মতো মানুষ ডাক্তারদের কাছে খুব ভরসা নিয়ে যাই। কিন্তু তাদের কাছ থেকে এমন আচরণ পেলে আমরা যাবো কোথায়? তারা যদি রোগীকে ধারাবাহিক ব্যবসার পণ্য মনে করেন তাহলে রোগীরা কোন ভরসায় তাদের কাছে যাবেন।
আবেদুর রহমান তার পিতার মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ী করতে চাননা উল্লেখ করে বলেন, আল্লাহর হুকুমে তিনি চলে গেছেন। কিন্তু চিকিৎসা কাজে সংশ্লিষ্টরা এ সব ব্যাপারে আরেকটু দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন। অনেক অসহায় মানুষ আছেন যারা এসব মুখ বুঝে সহ্য করছেন। এসব অন্যায়ের প্রতিবাদ করা উচিত। সকলকে আরেকটু সচেতন হওয়া প্রয়োজন। এভাবে চললে চিকিৎসা ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আস্থাহীনতা বাড়বে, আমরা ভরসা হারিয়ে ফেলব। ফলে সরকারকে এসব ব্যাপারে আরো কঠোর হওয়ার আহবান জানান তিনি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

December 2017
S S M T W T F
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

সর্বশেষ খবর

………………………..